অতি উৎসাহী হয়ে বা অতি আত্মবিশ্বাসী হয়ে এগিয়ে যাওয়াটা সবসময় সঠিক নাও হতে পারে।

Penlyf_Image1

সালটা ছিল ১৯৯৯ । বগুড়া পুলিশ লাইন্স মাঠ। ফুটবল ম্যাচ চলছে। গোলকিপার দৃঢ়ভাবে দাঁড়িয়ে আছে গোলপোস্ট আগলে। প্রতিপক্ষ দলের স্ট্রাইকার প্রচন্ড গতিতে তার সর্বস্ব দিয়ে ছুটে আসছে। গোলকিপার তখনও দৃঢ়ভাবে দাঁড়িয়ে। তাকে বল ঠেকাতে হবেই। গোলকিপার একদৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে প্রতিপক্ষের স্ট্রাইকারের দিকে। একে একে ডিফেন্সগুলো অতিক্রম করে এগিয়ে আসছে স্ট্রাইকার। গোলকিপারের চোখে শুধু বল আর স্ট্রাইকার। ছুটে আসতে আসতে স্ট্রাইকার বলে শট করলো। গোলকিপার ঝাঁপিয়ে বল ধরে ফেললো। কিন্তু দ্রুত গতিতে ছুটে আসা স্ট্রাইকার নিজেকে সামলাতে পারলো না। মুহূর্তের মধ্যে গোলকিপারের সাথে তার সংঘর্ষ হলো!

এ সংঘর্ষ সাধারণ কোনো সংঘর্ষ ছিল না। একটা স্বপ্নের মৃত্যু হয়েছিল সেদিন। একটা খেলোয়াড়ের অবিশ্রান্ত পরিশ্রমের জলাঞ্জলি হয়েছিল সেদিন।

তিনি প্রায় 6 ফুট লম্বা প্রশস্ত দেহের অধিকারী। দলের সেরা গোলকিপার হিসেবে নিজের পরিচয় সৃষ্টি করেছিলেন তিনি। সেই স্কুল লেভেল থেকে সফলতার সাথে খেলতে খেলতে একসময় উপজেলা পর্যায়ে খেলেছেন। খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। তার দেহের গড়ন ও ক্ষিপ্র গতিতে ছুটে আসা বলের গতি রোধে তিনি ছিলেন অনন্য। তার পারফরম্যান্স সবার মন কেড়ে নিয়েছিল। অবশেষে জেলা পর্যায়ের খেলায়ও তাকে গোলকিপার হিসেবে নির্বাচন করা হয়। সফলতার সাথে জেলা পর্যায়ের ম্যাচগুলো খেলার পর আরো একধাপ এগিয়ে যান তিনি।

অবশেষে ১৯৯৯ সালে রাজশাহী বিভাগ “সোহরাওয়ার্দী গোল্ডকাপ” ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করে। এই টুর্নামেন্টে খেলার জন্য বগুড়া জেলা থেকে যে টিম তৈরি হয়েছিল সেখানেও তিনি গোলকিপার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

প্রায় ১৫ দিন ব্যাপী আর্মি কোচের তত্ত্বাবধানে ট্রেইনিং এর সেইদিন টা ছিল শেষদিন। শেষ প্রাকটিস ম্যাচ। কিন্তু সেটাই তার ফুটবল ক্যারিয়ার এর সমাপ্তি ম্যাচ হয়েছিল! ঐদিন প্রতিপক্ষের ক্ষিপ্রগতিতে ছুটে আসা স্ট্রাইকারের সাথে ধাক্কা লেগে তার বাম পাশের কন্ঠা হাড়টি ভেঙে যায়। ফলে ডক্টর তাকে ফুটবল খেলা থেকে বিরত থাকতে বলে। এরপর আর কখনোই তিনি প্রফেশনাল ফুটবল খেলায় নিজেকে যুক্ত করতে পারেননি।

“যদি বুঝতে পারেন কোন বিপদ আসন্ন, তাহলে অতি উৎসাহী হয়ে বা অতি আত্মবিশ্বাসী হয়ে এগিয়ে যাওয়াটা সবসময় সঠিক নাও হতে পারে। মাঝে মাঝে অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।”

তিনি বলেছেন

Leave a Reply